সামালো তরবারি

তোমার আদল মিললো যখন অদেখা স্মৃতির থেকে
ছন্দ তারি উথলি ওঠে তরুণ তাজা রঙে রেখার অনুকারী
নাব্য ধারা শূন্যে তারা আকাশগঙ্গা বহে
আনবে ছেঁকে গহন থেকে মানস মুক্তোগুলো সমূহ রূপকারী
-এবার সামালো তরবারি;

তোমার মনন দহন উঠলো যখন বেঁকে
শঙ্খচূড়ের মতো
কঠিন শেকল ছিন্ন করে ছুটলো মায়ার হরিন
চন্দ্রাহত বেগে
নিবিড় বনে ছুটবে না আর
শিকার খোঁজা ঘোড়া এখন কোনমতে
কেননা আবার নিজের গন্ধ করে চোখ
কস্তুরীটা থেকে,
এবার ধরো হে রাশ টেনে।
কথার ঢেউয়ের শুভ্র চূড়ায় থমকে থাকে যতি
হঠাৎ মাত্রা ছন্দ লয়ে ভরিয়ে দেবে প্রীতি
এমনতর অঙ্গীকারে যখনি ওঠো জেগে
সোনার কাঠি রূপোর কাঠি বদল হয়ে গ্যাছে
দ্যাখো লো সুন্দরী
এমন সময় আবেগে তার ব্রীড়াতে থরো থরো
কাঁপছে আশাবরী
এখন তাকে চমকে দিয়ে বেরিয়ে পড়ে বনে
অপয়া আততায়ী
এবার তাকে জাপটে ধরে রুখতে হবে ঠিকই
ওহে! সামালো তরবারি।